পথের পাঁচালী, অপরাজিত সহ জনপ্রিয় অসংখ্য উপন্যাসের রচয়িতা কথাসাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় ছিলেন এক জন জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক। তিনি মূলত উপন্যাস ও ছোটগল্প লিখে খ্যাতি অর্জন করেন। পথের পাঁচালী ও অপরাজিত তাঁর সব চেয়ে বেশি পরিচিত উপন্যাস। অন্যান্য উপন্যাসের মধ্যে আরণ্যক, আদর্শ হিন্দু হোটেল, ইছামতী ও অশনি সংকেত বিশেষ ভাবে উল্লেখযোগ্য।

আঠারোশো চুরানব্বই সালের বারোই সেপ্টেম্বর তিনি জন্মগ্রহণ করেছিলেন। পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলার কাঁচরাপাড়ার নিকটবর্তী ঘোষপাড়া সুরারিপুর গ্রামে মামার বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পৈতৃক নিবাস উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলার বারাকপুর গ্রামে।

পিতামাতার পাঁচ সন্তানের মধ্যে বিভূতিভূষণ ছিলেন সবার বড়। উনিশশো একুশ খ্রিস্টাব্দে প্রবাসী পত্রিকার মাঘ সংখ্যায় উপেক্ষিতা নামক গল্প প্রকাশের মধ্য দিয়ে তাঁর সাহিত্যিক জীবনের সূত্রপাত ঘটে।

ভাগলপুরে কাজ করার সময় উনিশশো পঁচিশ সালে তিনি পথের পাঁচালী রচনা শুরু করেন। এই বই লেখার কাজ শেষ হয় উনিশশো আঠাশ খ্রিস্টাব্দে। এটিই বিভূতিভূষণের প্রথম এবং শ্রেষ্ঠ রচনা।

এর মাধ্যমেই তিনি বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। এর পর অপরাজিত রচনা করেন যা পথের পাঁচালীরই পরবর্তী অংশ। উভয় উপন্যাসেই তাঁর ব্যক্তিগত জীবনের প্রতিফলন ঘটেছে।

বিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক সত্যজিৎ রায় পথের পাঁচালী উপন্যাসের কাহিনীকে চলচ্চিত্রে রূপদানের মাধ্যমে তাঁর চলচ্চিত্র জীবনের সূচনা করেছিলেন। এই চলচ্চিত্রও প্রচুর দেশি, বিদেশি পুরস্কার ও সম্মাননা লাভ করেছিল।

এর পর অপরাজিত এবং অশনি সংকেত উপন্যাস দু’টি নিয়েও সত্যজিৎ চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছিলেন। এর সব গুলোই বিশেষ প্রশংসা অর্জন করেছিল। পথের পাঁচালী উপন্যাসটি ভারতীয় ভাষা এবং ইংরেজি ও ফরাসি ভাষায় অনুদিত হয়েছে।

উপন্যাসের পাশাপাশি বিভূতিভূষণ প্রায় বিশটি গল্পগ্রন্থ, কয়েকটি কিশোরপাঠ্য উপন্যাস ও কয়েকটি ভ্রমণকাহিনি এবং দিনলিপিও রচনা করেন।

উনিশশো একান্ন সালে ইছামতী উপন্যাসের জন্য বিভূতিভূষণ পশ্চিমবঙ্গের সর্বোচ্চ সাহিত্য পুরস্কার রবীন্দ্র পুরস্কার (মরণোত্তর) লাভ করেন।

উনিশশো পঞ্চাশ সালের আজকের এই দিনটিতে অর্থাৎ পহেলা নভেম্বর তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

আজ তার মৃত্যুবার্ষিকীতে লোকজ সাংস্কৃতিক সংগঠনের সকল সদস্য, দায়িত্বশীল এবং শুভাকাঙ্ক্ষীবৃন্দের পক্ষ থেকে জানাচ্ছি বিনম্র শ্রদ্ধা এবং অজস্র ভালোবাসা।

তারিখঃ- ১/১১/২০২১ ইং।

Facebook Comments